প্রেমিকা কখনই আপনাকে ছেড়ে যাবেনা এই ৩টি কাজ করুন

প্রেমিকা কখনই আপনাকে ছেড়ে যাবেনা এই ৩টি কাজ করুন

হাই ফ্রেন্ডস, কেমন আছো সবাই? আশা করি অনেক ভালো আছো। বন্ধুরা সম্পর্কের মাঝে ফাটল কথাটা সত্যিই আমাদের মন খারাপ করে দেয়। তাই আপনাদের মন ভালো করতে আমি সফিক বলে দিবো কেন ভালো একটা সম্পর্কের মাঝে ফাটল ধরে এবং কি কি করলে এর থেকে আমরা রক্ষা পাব। তাই আলোচনাটি শুরু থেকে শেষ পর্যন্ত মনযোগ সহকারে পড়ুন তা না হলে কিছুই বুঝবেন না। 

১। অতিরিক্ত সন্দেহ করা: সন্দেহ এমন একটা জিনিস যা যদি কারো মনে একবার প্রবেশ করে তাহলে তাকে নিমিশেই গ্রাস করে ফেলে। আর তার প্রেক্ষিতে সে অপর মানুষটিকে খারাপ ভাবতে শুরু করে। যেমন ধরুন: আপনার গার্লফ্রেন্ড তার কোন বড় ভাইয়ের বাথডে সেলিব্রেট করতে গেল শুধু গেল নয়, হাতে অনেকগুলো তাজা গোলাপ নিয়ে গেল। এখন হঠাত করে রাস্তার মধ্যে আপনার সাথে দেখা হয়ে গেল আপনি তাকে দেখে তো অনেক খুশি। কিন্তু যখন হাতে গোলাপ দেখলেন তাও আবার সেটা ভাইয়ার জন্য। বাস হয়ে গেলে শুরু তুমি আমার জন্য তো একটা ফুলের পাপড়িও নিয়ে আসনি এতোদিন। আর আজ ভাইয়া না ২ মিনিট ফোন ওয়েটিংয়ে থাকলে এজন্যই তো বলি ফোন কেন এতো ওয়েটিং থাকে। এগুলো শুনে মেয়েও রাগে ফায়ার যুদ্ধ শুরু। তাই আমি বলি দ্বিতীয় স্টেপটি ফলো করুন। সব সমস্যার সমাধান পেয়ে যাবেন। 

২। আলোচনা বা পরামর্শ করা: প্রথমত মেয়েদের বলছি আপনি কোথায় যাবেন কি করবেন, কিভাবে করবেন, কোনটা করলে ভালো হয়। এগুলো আপনার প্রিয় মানুষটির সাথে আলোচনা করুন। তাকে বলুন কি করা যায়, পরামর্শ নিন। তাহলে দেখবেন সে আগে থেকেই সব কিছু জানতে পারবে। আর হঠাৎ আপনাকে সন্দেহও করবেনা। আর এই ভুলগুলোর জন্য আপনাদের গভীর সম্পর্কে ফাটলও ধরবেনা। ঠিক সেম কাজটাই ছেলেদেরও করতে হবে। তাহলে দেখবেন আপনাদের মাঝে ভুল বোঝা বুঝি হবেনা। আর সন্দেহ করার তো প্রশ্নই উঠে না। 

৩। আগের মতো সময় না দেওয়া: প্রথম প্রথম আপনি সকাল থেকে শুরু করে সারা রাত কথা বলতেন। ঘন্টার পর ঘন্টা এক মুহূর্তও তার সাথে কথা না বলে থাকতে পারতেন না। কিন্তু আপনি এখন দিনে ১০ মিনিটও ঠিক মতো কথা বলেন না। শুরু কিন্তু আপনিই করেছিলেন ঘন্টার পর ঘন্টা কথা বলা। এতে মেয়ে যখন অভ্যস্ত হয়ে গেল সারাক্ষণ কথা বলতে কিন্তু আপনি তখন ব্যস্থ হয়ে পড়লেন। আর এতে মেয়ে ক্ষিপ্ত হয়ে সিদ্ধান্ত নিলো আপনার সাথে ব্রেকআপ করার। তাই ব্রেকআপে না যেতে চাইলে আপনাকে একটু হলেও তাকে সময় দিতে হবে। আর বোঝাতে হবে আপনি খুব গুরুত্বপূর্র্ণ একটা কাজে বিজি। তাই আগের মতো সময় দিতে পারছেন না ব্যাস কাজ শেষ। তো বন্ধুরা আজকের মতো এখানেই শেষ করছি। 

Leave a Comment