প্রেমিকা মেসেজের রিপ্লাই না দিলে কিভাবে রাগ ঝাড়বেন

প্রেমিকা মেসেজের রিপ্লাই না দিলে কিভাবে রাগ ঝাড়বেন

দেখুন অস্থির কিছু টেকনিক । Relationship Advice

হাই গাইস ওয়েলকাম ব্যাক। বন্ধুরা আজ আমি ছেলেদের মনের কষ্ট কমানোর কিছু ওষুধের কথা বলব। যে ওষুধগুলো যদি আপনি নিয়মিত ব্যবহার করেন বা ভালোভাবে বুঝে ব্যবহার করেন তাহলে আমার মনে হয় আপনার মনের কষ্ট মিটে যাবে, ঝাল মিটে যাবে, আপনার মনের রাগ একটু হলেও কমে যাবে। তো কষ্টটা হলো কি যে মেয়েরা মেসেজের রিপ্লাই দেয় না অথবা মেসেজ সিন করে রেখে দেয় কিছুই বলে না। খুব তেল মেরে, পামপট্টি মেরে, সব ডায়লগ মারলে খুব বেশি হলে হা, হুম এসব বলে। তো এমন কষ্ট থেকে মনকে ঠান্ডা করবেন কিভাবে, মনের ঝাল মিটাবেন কিভাবে, আর কিভাবেই বা নিজেকে বোঝাবেন। তো এই সমস্ত কষ্ট আর জ্বালা দূর করার জন্য কিছু ওষুধ বা কিছু পদ্ধতি আজ আমি আপনাদের শেখাবো। আলোচনাটি শেষ অবধি ভালো করে পড়ুন, আশা করছি আপনার মনের রাগ ঠান্ডা হবে এবং আপনি অনেক মজাও পাবেন। 

১। প্ল্যান বি রাখুন। আপনি শিকারি শিকার করা আপনার কাজ। আপনি ফাঁদ পেতে স্বীকার করেন। তো যখন আপনার শিকার আপনার ফাঁদে পা না দেয়, তখন কিন্তু আপনার প্ল্যানটি নষ্ট হয়ে যায়। তো এখন যদি আপনি ফাঁদ পেতে রাখার পাশাপাশি প্ল্যান বি মানে বন্দুক নিয়ে সেই শিকারের দিকে তাক করে থাকেন, যাতে শিকার আপনার প্রথম ফাঁদে আটকা না পড়লেও যেন দ্বিতীয় ফাঁদে মানে বন্দুকের গুলিতে যেন আটকা পড়ে। তাহলে কি আপনার পরিকল্পনা বা পরিশ্রম নষ্ট হবে? হবে না। আমিও এগজ্যাক্টলি এটাই বোঝাতে চাচ্ছি যে আপনিও প্ল্যান বি রাখুন। কোন মেয়ের সাথে রিলেশন করা, কথা বলা এগুলোই তো মূলত আপনার চাওয়া বা উদ্দেশ্য তাই না? তো আপনিও চার পাঁচটা মেয়ের সাথে কথা বলা স্টার্ট করুন, চার-পাঁচটা মেসেজ করা শুরু করুন টার্গেট করুন। একটা না তো একটা আপনার সাথে ফিট খাবেই ১০০% গ্যারান্টি। 

২। আনএক্সপেক্টেড কিছু বলুন। যখনি আপনি বারবার মেসেজ করছেন সে কোন রিপ্লাই দিচ্ছে না বা শুধু সিন করছে। তো আপনার মনে তখন কিন্তু অবশ্যই অনেক রাগ হয়, আপনি কিছু বলতেও পারছেন না সহ্যও করতে পারছেন না। এ সময় আপনার মনের ঝাল মেটাতে হলে সে যেটা আশা করেনি এমন কিছু কথা আপনাকে বলতে হবে। দেখুন আপনার উদ্দেশ্য হলো মনের ঝাল মেটানো, আপনার মনের কষ্টগুলো বের করে দেওয়া। এরপরে সে আপনার সাথে কথা বলবে কি বলবে না সেটা পরের কথা। আপনি ব্যাস আপনার মনের কথা ভাবুন। যেমন ধরুন: কি খুব ভাব ধরছে না? মেন হচ্ছে ফেসবুকের মালিকের সাথে সারাদিন মিটিং করো? ভালো মনে করে একটা কথা বলার জন্য বারবার এস এম এস করছিলাম। বাট তুমি যে ভাব দেখাইতেছ মনে হচ্ছে আমি ফকিন্নি, এখন ভাব দেখাচ্ছ দেখাও পরে বুঝবা। এই এই এমন ধরণের দু একটা আশ্চর্য মূলক কোন কথা বলে আপনি চুপ করে বের হয়ে আসবেন। আর নয় তো আপনার মেসেজের রিপ্লাই করবে, যেটাই করুন মোটকথা হলো আপনার মনের ঝাল তো মিটবে নাকি? এরপর তাকে আর এস এম এস করার কোন দরকার নেই কারণ আপনি তো আগেই প্ল্যান বি রেখেছেন তাই না? তার ওপর কাজ করে যান। 

৩। বিভিন্ন গ্রুপে তাকে অ্যাড করে দিন। অথবা সে যে পোস্টগুলো ফেসবুকে করে সেই পোস্টে গিয়ে তার ভুল ধরুন। অনেক হয়েছে পাগলের মতো বারবার মেসেজ করা, আর অনেক হয়েছে তার মেসেজের রিপ্লে পাওয়ার পথ চেয়ে থাকা। ভালোভাবে যদি আপনার সাথে কথা না বলে, যদি অযথা আপনার মেসেজ সিন করে রেখে দেয় কোন কথা না বলে। আপনার মনকে শান্তি দেওয়ার বিশেষ একটা উপায় হলো ওই মেয়েকে মেসেঞ্জারে বিভিন্ন যে গ্রুপ গুলো থাকে সেই গ্রুপে অ্যাড করে দিন। একবারে দুই তিনটা গ্রুপে এড করে দিবেন যাতে মেসেজের যন্ত্রণায় সেও আপনার মত বিরক্ত হয়ে যায়, যতটা আপনি তার মেসেজের রিপ্লাই না পেয়ে বিরক্ত হয়েছেন। অথবা সে ফেসবুকে কিছু না কিছু অবশ্যই পোস্ট করে তার ছবি বা কোন কিছু লেখা যেটাই পোস্ট করুক না কেন আপনি সেই পোস্টে গিয়ে কমেন্ট বক্সে সেই পোস্টের ব্যাপারে কোনো না কোনো ভুল ধরবেন একটু বড় করে লিখবেন যাতে সবার চোখে পড়ে। আর যখন এমনটা করবেন তখন আপনার মনে আপনি এতোটা শান্তি পাবেন যা আমি বলে বুঝাতে পারব না। আপনার প্রতিশোধ নেওয়া হয়ে যাবে। তো কেউ যদি আপনার মেসেজ সিন করে রেখে দেয়, অকারণে আপনার সাথে কথা না বলে, তাহলে আপনার মনকে শান্তি দেওয়ার জন্য আপনি এটা করতে পারেন। 

৪। ব্লক করে দিন। বন্ধুরা আমি শুরুতেই আপনাকে বলেছি যে প্ল্যান বি রাখুন। তো যখন আপনি প্ল্যান বি রাখবেন, মানে চার পাঁচটা মেয়ের সাথে আপনি কথা বলার চেষ্টা করবেন, যখন দেখলেন যে দুই একটা মেয়ে আপনাকে ভাও দিচ্ছেনা, আপনার সাথে খুব ভাব দেখাচ্ছে, তখন ধ্যারাধ্যার দু চারটা কথা বলে ধাম করে ওকে ব্লক করে দিন। আমি জানি যে, কোন মেয়েকে ব্লক করে দিতে ছেলেদের হাত কাঁপে। বাট দাদা! অনেক হয়েছে কাপাকাপি অনেক হয়েছে নারানারি এখন ওসব ছেড়ে দিয়ে নির্দ্বিধায় চোখ বন্ধ করে ধুমধাম মেয়েকে ব্লক করে দিন। দেখবেন মনে কতটা শান্তি পান, মুখ ফুটে বলতে পারবেন যে আমি মেয়েদের ব্লক করে দেই, নিজে নিজেকে অহংকারের সাথে বলতে পারবেন অন্য কাউকে শোনাতে হবে না। তো মেয়ে যদি আপনার সাথে কথা না বলে, যদি আপনার মেসেজ সিন করে রাখে, ভাব দেখায়, তাহলে চাপ নেওয়ার কোন কারণ নাই ধুমধাম ব্লক করে দিবেন। দেখবেন রাগ মিটে যাবে, মনে শান্তিও চলে আসবে। তবে একটা কথা ভালো করে খেয়াল রাখবেন যে আপনার এ কাজগুলো যেন অন্যায় ভাবে না হয় বা কাউকে আঘাত না করে সেদিকে খেয়াল রাখবেন। তো বন্ধুরা আলোচনাটি কেমন লাগলো তা অবশ্যই কমেন্ট করে জানাবেন। পরবর্তীতে নতুন কোনো আলোচনা নিয়ে আবার দেখা হবে সে পর্যন্ত সবাই ভালো থাকবেন সুস্থ থাকবেন এবং নিজের খেয়াল রাখবেন গুড বাই।

 

Leave a Comment