THE FUTURE IS NOW- BANGLA MOTIVATION

THE FUTURE IS NOW- BANGLA MOTIVATION

বাস্তবে অতীত বা ভবিষ্যৎ বলে কোন কিছুরই অস্তিত্বই নেই। এই শব্দ দুটোকে আমরা সৃষ্টি করেছিলাম এটাকে বোঝার জন্য যে আমরা কোথায় ছিলাম এবং আমরা কোথায় যাচ্ছি। কিন্তু এই দুটো ব্যাপারের থেকেও আমাদের জন্য যেটা সবথেকে গুরুত্বপূর্ণ সেটা হলো আমরা এখন কি করছি। কিংবা কেমন অনুভব করছি। কারণ প্রকৃত সত্য এটাই যে আমরা বর্তমানেই বেঁচে আমিছ। এই মুহুর্তেই বেঁচে আছি। এখানে কোন রকম ভবিষ্যত বা ভূত কালের অস্তিত্বই নেই। কিন্তু তবুও আমরা কখনো কখনো এই বর্তমানেই অতীত এবং ভবিষ্যতের অনুভূতি পাই। আর এর জন্য দায়ী আমরা নিজেরাই। আমরা আমাদের বাস্তব বর্তমানের থেকেও বেশি গুরুত্ব দেই আমাদের স্মৃতি জড়িত অতীতের। আমাদের স্বপ্নের ভবিষ্যতের। আর সেই কারণেই আমাদের মন তার মানসিক সময় যাত্রার মাধ্যমে। এই বাস্তবিক বর্তমানেও কখনো কখনো অতীত এবং ভবিষ্যতকে প্রকট করে তোলে এবং আমরা শারিরীক এবং মানসিক ভাবেই এই বর্তমানেও অতীত বা ভবিষ্যতের অনুভূতি পাই। অনেকেই হয়তো মনে করেন সময় যাত্রা শুধুমাত্র নিছকই গল্প এবং আইন স্টাইনের সূত্রের মধ্যেই সীমাবদ্ধ। কিন্তু বাস্তবিক ভাবে আমি মনে করি সময় যাত্রা যথেষ্টই সত্য এবং এর কবলে বেশীর ভাগ মানুষ আক্রান্ত। কারণ বেশীর ক্ষেত্রেই আমরা বর্তমানে অবস্থিত হয়েও কখনো কখনো অতীত এবং ভবিষ্যতে মানসিক সময় যাত্রা করি এবং বাস্তব বর্তমানেই এগুলোকে প্রকট করে তুলি। যার ফলে কখনো কখনো দুঃখ পাই কিংবা আনন্দ অনুভব করি। অথচ এসবের সাথে বাস্তব মুহুর্তের কোনো রকম সংযোগ না থাকার সর্তেও। সুতরাং আমাদেরকেই সর্বপ্রথমে নির্ধারণ করা উচিত যে আমরা জীবনের কাছ থেকে কেমন সব অনুভূতি চাইছি। যে মুহূর্তেই এগুলোকে আমরা ঠিক করে নিতে পারবো সেই মুহূর্ত থেকেই আমাদের মানসিক সময় যাত্রা শুরু হবে আমাদের ভাবনা শক্তির মাধ্যমে। কোন কিছুতেই যখন আমরা বেশী মাত্রায় ভাবনা লাগাই তখন এই বিশ্ব সেটাকেই আমাদের বর্তমানে বাস্তব হিসাবে প্রকট করে তোলে। সুতরাং তুমিই যদি তোমার স্বপ্নের ভবিষ্যতের অনুভূতি পেতে চাও। তোমাকে তোমার বর্তমানকেই নির্ধারণ করতেই হবে। অর্থাৎ এখন থেকেই তোমাকে ভবিষ্যতের মতো অনুভব করা শুরু করতে হবে। হয়তো তুমি যেগুলোকে চাইছো সেগুলো এই মুহূর্তে বাস্তবিক অবস্থাতে নেই কিন্তু কিছু কাল পরেই ওগুলো তোমার জীবনে বাস্তব হিসাবে প্রকট হতে বাধ্য। কারণ যে মুহূর্ত থেকে তুমি বর্তমানে থেকেও ভবিষ্যতের মতো অনুভব করা শুরু করো সেই মুহূর্ত থেকেই তোমার ভবিষ্যত শুরু হয়। প্রাথমিক স্তরে হয়তো এটা অবাস্তব দেখায় কিন্তু প্রকৃত পক্ষে তোমার ভবিষ্যত নির্ধারণের পরবর্তী মুহূর্তগুলোত তোমার মধ্যে অদৃশ্য শক্তিগুলোর সঞ্চারন ঘটতে থাকে। যার মাধ্যমেই তুমি কর্মঠ হয়ে ওঠো এবং সেই সমস্ত ক্রিয়া কলাপ করো যেগুলো তোমার ভবিষ্যতকে বাস্তবে প্রকট হতে বাধ্য করে। তাই যদি তুমি ভেবে থাকো সুদূর ভবিষ্যতে তোমার জীবনে কোনো ব্যক্তি বা কোনো কিছু আসবে এবং তোমার জীবনকে বদেল দেবে তাহলে তুমি ভূল ভাবছো। কারণ এখানে কোন রকম ভবিষ্যতের অস্তিত্বই নেই। এখানে শুধুমাত্র বর্তমানই বিরাজমান। কিন্তু যদি তুমি তোমার স্বপ্নের ভবিষ্যতের অনুভূতি পেতে চাও তাহলে অবশ্যই তোমার বর্তমানকে ভবিষ্যতের মতো বানিয়ে নাও। কারণ প্রকৃত সত্য হলো আমরা বেঁচে থাকি বর্তমানে আমরা বেঁচে আছি এই মুহূর্তে আর আমরা বাঁচবোই এই মুহূর্তে। বর্তমানে আগামী বলে কিছুই নেই। কারণ আগামী এখনই। 

Leave a Comment